SHARE
Believe yourself, Colorful words on blackboard.

গত পরশু রাতে (২২ নভেম্বর ২০১৫) এক মারাত্বক দুর্ঘটনার শিকার হই এবং ভাগ্য ভাল যে অনেক অল্পের উপর দিয়ে গেছে। এ ধরনের দুর্ঘটনায় অনেক বেশি ক্ষতি হতে পারতো। তারপর গতকাল বেশ কিছু টেস্ট এবং আজ রেজাল্ট পেয়ে যা বুঝলাম যে শরীর তেমন ভাল নেই। ৪০+ বয়সে এসে এমনিতেই সবার উচিত নিজের যত্ন নেয়া। কিন্তু আজ পর্যন্ত এটিই আমি সবচেয়ে বেশি কম করেছি, বা নিজের যত্ন নেবার সুযোগ পেয়েছি। আর এর সঙ্গে গত এক বছর ধরে দিন রাত একটি স্বপ্নের পেছনে ছুটে গেছি বলে শরীরের উপর দিয়ে অনেক ধকল গেছে। এখন এমন একটা অবস্থায় এসেছি যেখানে নিজের শরীরের যত্ন নিতে হবেই না হলে খুব অল্প বয়সে বিছানায় পরে যাবো।

Believe yourself, Colorful words on blackboard.
Believe yourself, Colorful words on blackboard.

অনেক গুলো বছর ধরে নানা রকম ভেজাল, টেনশন পার হয়েছি, অতিক্রম করেছি অনেক খারাপ সময়। কখনো এগিয়ে গেছি, কখনো বা হেরে গেছি। একেক সময় একেক ধরনের সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়েছে। এবারে যে সমস্যার মধ্যে পড়েছি তাহল নিজের শরীরের যত্ন নেবার, নিজের দিকে লক্ষ্য রাখার। এটি খুব কঠিন হবার কথা নয় তবে আমার জন্য বেশ কঠিন কারণ আমার এ ধরনের অভ্যাস বা অভিজ্ঞতা কোনটাই নেই। বরং সব সময় নিজের শরীর ও মনকে বাজি রেখে কোন স্বপ্নের পেছনে ছোটার অভিজ্ঞতা রয়েছে অনেক। তাই এখন যা করতে হবে তাহল যা পারি না তা করতে হবে এবং যা পারি তার বিপরীত কিছু করতে হবে।

ঠিক মত খাওয়া, ঠিক মত বিশ্রাম, নিয়মিত ঘুমানো এগুলো আমার জন্য বেশ কঠিন। এমন না যে আমার কোন রকম কোন খারাপ নেশা ছিল বা আছে। জীবনের বাস্তবতা বেশীরভাগ সময়ে আমার বিপক্ষে ছিল এবং সেই সঙ্গে বড় কিছু করার স্বপ্ন ছিল। ফলে যতটা সময় পেয়েছি তা কাজে লাগানোর চেষ্টা করেছি নতুন কিছু শিখতে এবং কাজ করতে। এর ফলে শরীরের প্রতি যত্ন নেবার অভ্যাস আর গড়ে উঠেনি বরং শরীরের বারোটা বাজানোর অভ্যাস গড়ে উঠেছে ভাল মত।

এখন আমাকে এমন কিছু করতে হবে যা আমার স্বভাবের উল্টো। তবে ভাল স্বাস্থ্য, শারীরিক আরাম, বিশ্রাম, এগুলোর একটা ভাল দিক হল মনে আনন্দ নিয়ে আসে। আপনি ঠিক মত ১০ ঘণ্টা ঘুমান এবং এর পর ঘুম থেকে উঠে দেখবেন যে অনেক ভাল লাগছে। গত একটা বছর আসলে সব দিকেই খুব কঠিন একটা সময় পার হয়েছি। তবে এই এক বছরের অভিজ্ঞতা আমাকে খুব বড় একটা জিনিশ শিখিয়েছে- লেগে থাকলে অনেক কিছুই সম্ভব।

মুলত এই অভিজ্ঞতা আমাকে আশাবাদী হতে শিখিয়েছে। আমি জানি একটু একটু করে প্রতিদিন চেষ্টা করলে অনেক কিছুই করা সম্ভব। এক বছরে অনেক কিছু বদলে যেতে পারে এবং অনেক কিছু করা সম্ভব।

আরেকটা জিনিস শিখেছি- মানুষের শুভ কামনার মুল্য। আপনার সঙ্গে যদি অনেক মানুষের শুভ কামনা থাকে তাহলে জীবনে এগিয়ে চলা সহজ হয়।

এখন থেকে চেষ্টা করবো নিজের যত্ন নিতে এবং একই সঙ্গে চেষ্টা করবো এনকারেজবিডিতে এ নিয়ে নিয়মিত লিখতে। ডায়েট, ব্যায়াম, টেনশন থেকে দূরে থাকা এসব খুব দরকার। এগুলো নিয়ে লেখার চেষ্টা করবো।

Comments

comments