SHARE
Believe yourself, Colorful words on blackboard.
Believe yourself, Colorful words on blackboard.

আত্মবিশ্বাস সবার জন্য দরকার কিন্তু আমাদের অনেকের মাঝেই তা নেই। এর ফলে আমাদের জীবনে এগিয়ে যেতে অনেক কষ্ট হয়। কারণ আমরা যখন বিশ্বাস করি যে আমাদের দিয়ে ভাল কিছু হবে না তখন ভাল কিছু করার ইচ্ছা শক্তি কমে যায়।

আমাদের সমাজে একটা সাধারন নিয়ম হল পরিক্ষার রেজাল্ট একজন শিক্ষার্থীর জ্ঞানের পরিমাপ নির্দেশ করে। একজন ছাত্র কতটা জানে তা গুরুত্বপুর্ন কিছু নয়। ফলে মুখস্থ করার দিকে ঝোঁক থাকে অনেকের এবং সৃজনশীলতার দিকে মন আমাদের তেমন কাজ করে না। এ ছাড়া যারা সিলেবাসের বাইরে বই পড়তে ভালবাসে তাদের নানা কথা শুনতে হয় ঘরে এবং বাইরে।

আরেকটা সাধারন নিয়ম হল একজন মানুষের পেশাগত জীবনে সফলতার এক মাত্র মাপকাঠি হল টাকা। তিনি কতটা জ্ঞান রাখেন, দক্ষ, সৎ তার চাকুরি বা ব্যবসাতে এগুলো অর্থ হীন। এটি সত্যি খুবই দুঃখজনক তবে আমার মনে হয় না যে কেউ আমার সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করবেন। আমাদের সমাজের বাস্তবতা এটি এবং এজন্য আমাদের অনেকেই মন খারাপ করে থাকে।

02 selfconfidence

সবচেয়ে খারাপ যা ঘটে তাহল এই যে আমরা অনেকেই আগ্রহ হারিয়ে ফেলি ভাল কিছু করার। মন দিয়ে লেখাপড়া করা, জানার চেষ্টা করা, নতুন নতুন বই পড়া অনেক ভাল গুন। সৎ ভাবে কাজ করা, পরিশ্রম করা, মনে দিয়ে কাজ শেখার চেষ্টা করা, ব্যবসা ও চাকুরীতে নীতি মেনে চলা খুব ভাল গুন। আসলে এভাবে জীবনে চললে আপনি এক সময় না এক সময় সুখ ও তৃপ্তি খুজে পাবেন। যে যা বলুক একজন সৎ মানুষের সঙ্গে একজন অসৎ মানুষের তুলনা হয় না। কিন্তু সামাজিক চাপে আমরা পিষ্ট হই এবং আমাদের আত্মবিশ্বাস নষ্ট হয়ে যায়।

এর ফলে অনেক মানুষের মধ্যে এক ধরনের হতাশা এবং হীনমন্যতা চলে আসে। আর সত্যি বলতে কি চারপাশের মানুষ কাছের বা দূরের ওত পেতে বসে আছে আপনাকে খোঁচানোর জন্য। অনেক বছর ধরে এগুলো নিয়ে চিন্তা করতে করতে এবং নিজের জীবনে অনেক কিছু দেখে এখন আমি এই সিদ্ধান্তে পৌছেছি যে আপনি যা জানেন, যা পারেন এগুলো সবচেয়ে বড় সম্পদ। এর মানে এই নয় যে রেজাল্টের দরকার বা গুরুত্ব নেই বা টাকা আয়ের জন্য চেষ্টা করবেন না।

আসলে আমরা অনেকেই চরম ভাবে চিন্তা করতে পছন্দ করি। টাকা আয় করা খারাপ কিছু নয় যদি সৎ পথে চেষ্টা করেন। পরীক্ষায় ভাল রেজাল্ট করা অবশ্যই ভাল কিছু তবে তার আগে দরকার পড়ার অভ্যাস গড়ে তোলা, জ্ঞানের প্রতি আগ্রহ থাকা এবং মন দিয়ে জ্ঞানার্জনের চেষ্টা করা।

তাই অবশ্যই চেষ্টা করবেন এবং মন প্রান দিয়ে করবেন। কিন্তু তার থেকেও বেশি চেষ্টা করবেন লেখাপড়ার সময় কিছু মন দিয়ে শিখতে এবং চাকুরি ও ব্যবসা জীবনে দক্ষতা আনতে। সবচেয়ে বড় কথা নিজের আত্ব বিশ্বাস হারাবেন না। বরং প্রতিদিন নিজেকে বলবেন যে একটু একটু করে এগিয়ে যেতে হবে। আপনি যা আপনি তাই-  কে কি বলল তা আপনাকে অন্য মানুষে পরিনত করবে না। অন্যদের ফালতু কথাকে পাত্তা দেবেন না।

বরং নজর দিন নিজেকে একজন সৎ ও ভদ্র মানুষে পরিনত করার। এতে করে আপনি যেমন মাথা উঁচু করে বাঁচতে পারবেন ঠিক তেমনি জীবনে প্রকৃত সুখ খুজে পাবেন। চেষ্টা করুন প্রতিদিন পড়ার অভ্যাস করতে। চেষ্টা করুন কাজে ফাঁকি না দিয়ে পরিশ্রম করার অভ্যাস করতে। এতে করে আপনি প্রতিদিন একটু একটু করে জীবনে এগিয়ে যেতে পারবেন।

ছবি সুত্রঃ এক

ছবি সুত্রঃ দুই

Comments

comments