SHARE

নীরবতা যে সব সময় সম্মতি জানানো বা দূর্বলতা প্রমান করে তা কিন্তু নয়। কখনো কখনো নিজের লক্ষ্যে পৌছানোর জন্য নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করতে হয়। লক্ষ যখন অনেক বড়, তখন পারিপার্শিকতার প্রভাব থেকে নিজেকে একটু আলাদা রাখাই ভালো। কারন এর ফলে আপনি নিজেকে নিজের কাজের প্রতি আর গন্তব্যে পৌছানোর ইচ্ছা শক্তির প্রতি সুদৃঢ় রাখতে পারবেন।

বিতর্কে জড়ানো আসলে নিজের মূল্যবান সময় অহেতুক অপচয় করা ছাড়া আর কিছুই নয়। এতে আপনি দুই ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারেন।
১. আপনার মূল্যবান সময় অপচয় হবে যে সময়টুকু আপনি ভালো কাজে ব্যয় করতে পারতেন এবং নিজের কাজকে অনেক খানি এগিয়ে নিয়ে যেতে পারতেন।

২. আপনি অন্যের বাজে মন্তব্যের কারনে হতাশ হতে পারেন।

তবে আপনাকে স্বেচ্ছাচারী হতে বলছি না। আপনার উদ্দেশ্য যদি সৎ এবং কাজ সম্ভাবনাময় হয়, আপনি কিছু সময়ের জন্য ভুলে যান আপনার চারপাশে কি ঘটছে। এটা আপনার জন্য আশার বানী নিয়ে আসতে পারে।

নিজেকে সংযত রাখা খুব সহজ কাজ নয়। এক ধরনের সাধনা বলা যেতে পারে। তবে অন্যের জন্য না হলেও নিজের সুফল আর সুদিনের কথা যদি আপনি চিন্তা করেন তাহলে এই একটা গুন আপনাকে বহুদূর এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে।

নিজের উপর বিশ্বাস রেখে এগিয়ে যান, পাছে যে যাই বলুক না কেন, আপনি শতভাগ সফল না হতে পারলেও অনেক কিছুই বদলে যাবে এটা নিশ্চিত থাকতে পারেন।

সমালোচনাকে সাদরে গ্রহন করুন কিন্তু অংশগ্রহন নয়। কেন বলছি?
-সমালোচনা মাদকের মত হয়। একবার যদি আসক্ত হয়ে যান তাহলে তা ছাড়তে আপনার ততোটাই বেগ পেতে হবে যতটা একজন মাদকসেবীকে মাদক ছাড়তে পেতে হয়।

সাদরে গ্রহন করবেন এজন্যই, সমালোচনা সব সময়ই যে নেতিবাচক হয় তা নয়। আপনারও কিছু ভুল থাকতে পারে, সেগুলো আপনার দৃষ্টিগোচর হয়ে থাকলে নিজেকে সংশোধন করে নেওয়ার একটা সুযোগ তৈরী হবে।

সমালোচকদের গুরুত্ব দিন, কিন্তু সবাইকে নয়। সেই সব সমালোচকদের গুরুত্ব দিন যারা আপনার সম্পর্কে ভালো ভাবে জেনে এবং বুঝে করছে। ধারনার উপরে ভিত্তি করে যারা সমালোচনা করে তাদের ছায়া মাড়ানো থেকে সর্বদা দূরে থাকুন।

আর একটা বিষয়ে আলোকপাত করতে চাই, আপনার সমালোচনা করার অধিকার তারই আছে যে আপনার প্রশংসা করার যোগ্যতা রাখে। বাকি সব তুচ্ছ। গুরুত্ব তাদেরকে দিন যারা আপনাকে খুব কাছ থেকে দেখেছে, জেনেছে, আপনার সঙ্গে মিশেছে। তাদের প্রশংসা হোক কিংবা সমালোচনা দুটোই আপনার জন্য আশীর্বাদ।

সব শেষে অনুপ্রেরনাই কাজের শক্তি, নিজে অনুপ্রানিত হই অন্যকে অনুপ্রানিত করি, সুখী সমৃদ্ধ সমাজ এবং জাতি গঠনে অংশগ্রহন করি। আশা করি জয় একদিন আমাদের হবেই।

Comments

comments